খালেদা জিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করতেই কেরানীগঞ্জে পাঠানো হচ্ছে

Pub: রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৯ ১:০৭ পূর্বাহ্ণ   |   Upd: রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৯ ১:০৭ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কুমিল্লা প্রতিবেদক:
দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করতেই তাকে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সরকার খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারাগারে বন্দী করে রেখেছে বলেও অভিযোগ তার।

শনিবার দুপুরে কুমিল্লায় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ফখরুল এই অভিযোগ করেন। সদর দক্ষিণ উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে সাবেক সংসদ সদস্য মনিরুল হক চৌধুরীর বাড়িতে কুমিল্লা-১০ আসনে নির্বাচনকালীন ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ের আগে ফখরুল সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আইনগতভাবে খালেদা জিয়া জামিন পাওয়ার যোগ্য। কিন্ত সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে তার জামিন বিলম্বিত করছে। যার কারণে তিনি ১৪ মাস ধরে কারাগারে। সরকারদলীয় অনেকে সাজাপ্রাপ্ত হয়েও মুক্ত আছেন এবং মন্ত্রিত্বও করছেন।’

খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিনিময়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে নির্বাচিতদের শপথ গ্রহণের কথা শুধু গুঞ্জন ও অসত্য বলে দাবি করেন ফখরুল।

লন্ডনে থাকা বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানের তিনটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দের নির্দেশের বিষয়ে ফখরুল বলেন, ‘এক দেশের আদালত আরেক দেশের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বন্ধের নির্দেশনা দিলে তা বন্ধ হয় কি না আমার জানা নেই।’

এর আগে কুমিল্লার বুড়িচংয়ে এক পথসভায় মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা যে চিন্তাভাবনা নিয়ে মুক্তিযুদ্ধ করেছি আওয়ামী লীগ মুক্তিযোদ্ধাদের সব চেতনা ধ্বংস করে দিয়েছে। তারা গণতন্ত্রকে শেষ করে দিয়েছে। মানুষের অধিকারকে হরণ করে নিয়েছে। আজকে তারা পিস্তল, বন্দুকের জোরে এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে ক্ষমতা ধরে রাখতে চায়।’

ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় সদর দক্ষিণ, লালমাই ও লাঙ্গলকোট উপজেলা নিয়ে গঠিত কুমিল্লা-১০ আসনের ৯৫ জন ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মীকে ১৫ হাজার টাকা করে অনুদান দেয়া হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য মনিরুল হক চৌধুরী, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কবির মুরাদ এবং মনিরুল হক চৌধুরীর মেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. সায়মা ফেরদৌস।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ