সবাই সতর্ক থাকুন, শত্রুপক্ষ সজাগ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

Pub: বৃহস্পতিবার, মে ১৬, ২০১৯ ১০:২৬ অপরাহ্ণ   |   Upd: বৃহস্পতিবার, মে ১৬, ২০১৯ ১০:২৬ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‘যে দেশগুলো ভালো করে, উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে যায় তাদের শত্রুও থাকে। সেজন্য দেশবাসীকে এখন সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে আমি বলবো- সবাই সতর্ক থাকুন, শত্রুপক্ষ সজাগ। কারণ বাংলাদেশ ভালো করছে, উন্নয়নের মহাসড়কে এগোচ্ছে।’

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা যখন উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রা শুরু করেছি সেখানে শেখ হাসিনা সবার আরও বেশি সমর্থন চান। কারণ যেসব দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রা শুরু করে, ইতিহাস বলে সেসব দেশে যুদ্ধ-বিগ্রহ, সন্ত্রাস লেগে থাকে। ইরাক মধ্যপ্রাচ্যের মধ্যে সবচেয়ে ভালো দেশ ছিল, ধ্বংস হয়ে গেছে। লিবিয়া কোনদিন বিদেশের ওপর নির্ভরশীল ছিল না, এখন সে দেশ বলতে কিছু নেই, শেষ হয়ে গেছে। যে দেশগুলো ভালো করে তাদের শত্রু থাকে। সেজন্য দেশবাসীকে এখন সতর্ক থাকতে হবে।’         

দারিদ্র্যতাকে ‘অভিশাপ’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সেই অভিশাপ গত কয়েক বছরে অনেক কমেছে। দেশে দারিদ্র্যতার হার অনেক নিচে নেমে এসেছে। এখন ২১ দশমিক ৩ শতাংশ। অতি দারিদ্য মাত্র ১১ শতাংশ। আমরা আশা করি, আগামী ৫ বছরে অতি দারিদ্র্যের হার ৫ শতাংশের মধ্যে নিয়ে আসবো। এসবই সম্ভব হচ্ছে শেখ হাসিনার দৃঢ়তা এবং স্বচ্ছ নীতির কারণে।’ 

আব্দুল মোমেন বলেন, ‘আরেকটি হল পদ্মা সেতুর ঘটনা, যখন সবাই ডেকে বলল পয়সা দিবে না, সেশ হাসিনা তখন বললেন- ‘আমি নিজের পয়সায় পদ্মা সেতু তৈরি করবো’। তাঁর কথার প্রমাণ দেশবাসী পেয়েছে। আজকে পদ্মা সেতু দৃশ্যমান। সুতরাং শেখ হাসিনা বাংলাদেশের জন্য, আমাদের জন্য একটি আশীর্বাদ। তবে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন গ্রুপ তাঁর ওপরে হামলা চালানোর তাঁকে হত্যার চেষ্টায় আছে। কারণ দেশে দুষ্ট লোকের অভাব নেই। ২৩ বার বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছে। এখনও যে শত্রুরা চুপ করে বসে আছে- এমন না।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর শেখ হাসিনা দীর্ঘ ৬ বছর প্রবাস জীবন কাটিয়েছেন। তাঁকে আওয়ামী লীগের সভাপতি করার পর তিনি বাংলাদেশে ৮১ সালের ১৭ মে প্রত্যাবর্তন করেন। তার প্রত্যাবর্তনে ভঙ্গুর আওয়ামী লীগ আবার শক্তিশালী হয়ে ওঠে। শুধু তাই নয়, দলকেও তিনি চারবার ক্ষমতায় আনেন। ক্ষমতায় আসার পর তিনি আইনের মাধ্যমে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করেন। বঙ্গবন্ধু হত্যার সঙ্গে যারা জড়িত ছিল তাদের বিচার করেন। এভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেন। এ দেশের মানুষ যাতে সুখে-শান্তিতে বসবাস করতে পারে সেজন্য বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করছেন শেখ হাসিনা।’

বঙ্গবন্ধু একাডেমির সহ-সভাপতি শেখ ইকবাল খোকনের সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, অধ্যাপক আবদুল মান্নান চৌধুরী, ড. সিদ্দিকুর রহমান, অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, এম এ করিম, এস এম তফাজ্জল হোসেন, হুমায়ুন কবির মিজি, সিনিয়র সাংবাদিক মানিক লাল ঘোষ, কাজী বসির আহমেদ, খায়রুজ্জামান ফরিদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ