fbpx
 

বিচারের দাবিতে আইনজীবীরা রাস্তায় নামা দেশের জন্য দুঃখজনক: সেলিমা

Pub: শনিবার, জুলাই ২৭, ২০১৯ ৪:১৩ অপরাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, জুলাই ২৭, ২০১৯ ৪:১৩ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিএনপিন স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান বলেছেন, ‘ন্যায় বিচারের জন্য আদালত ছেড়ে যখন আইনজীবীদের রাস্তায় নেমে আসতে হয় তখন একটা স্বাধীন রাষ্ট্রের জন্য এর চেয়ে দুঃখজনক আর কিছু হতে পারে না।’

তিনি বলেন, ‘আদালতে যদি সঠিকভাবে বিচার করা হতো তাহলে আইনজীবীদের রাস্তায় নামতে হতো না। আজকে আদালত স্বাধীন না এবং সেখানে সঠিক বিচার হ য়না বলেই আইনজীবীরা রাস্তায় নামতে বাধ্য হয়েছে।’

শনিবার (২৭ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘গণতন্ত্র ও বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি আইনজীবী আন্দোলন’র উদ্যোগে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ভোটারবিহিন নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবিতে এই মানববন্ধন করা হয়।

এসময় বিএনপির এই নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারাবরণের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘গণতন্ত্রের মাতা বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত ভাবে কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছে। একটা মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে অন্যায়ভাবে কারারুদ্ধ করে এদেশ লুটপাটের রাজ্যে পরিণত করছে এই ভোটারবিহীন অবৈধ সরকার। সরকার বেগম জিয়াকে তিলেতিলে মেরে ফেলার চেষ্টা করছে। এই ফ্যাসিবাদী সরকারের দ্বারা দেশের জনগণ আক্রান্ত হয়ে ধুকে ধুকে মরছে তাই সকলকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে এবং এই জালেম সরকারকে ক্ষমতা থেকে টেনেহিচড়ে নামাতে হবে। যেখানে নিম্ন আদালত বেগম জিয়াকে ৫ বছরের সাজা দেয় উচ্চ আদালতে সাজা কমানোর জন্য মানুষ আসে আর সেখানে তার সাজা আরও বাড়িয়ে দেয় হলো।’

সেলিমা রহমান দেশের বর্তমান বিচারব্যবস্থার সমালোচনা করে বলেন, ‘যখন একটি দেশের আইন ও বিচারব্যবস্থা রাষ্ট্রযন্ত্রের কাছে বন্দি হয়ে যায় তখন সেদেশ ধংস হতে আর অবশিষ্ট কিছু বাকি থাকে না। বাংলাদেশ ধীরে ধীরে অন্ধকারের দিকে ধাবিত হচ্ছে, তাই বাংলাদেশকে এই অন্ধকার থেকে আলোতে আনতে হলে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে, তাহলেও আবারো দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হবে মানুষ নির্বিঘ্নে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবে। মানুষের কথা বলার অধিকার ফিরে আসবে।’

দেশের বর্তমান অবস্থার চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘বর্তমানে দেশে হত্যা, শিশু ধর্ষণ, দুর্নীতি মহামারী আকার ধারণ করেছে। তারা ডেঙ্গু মহামারীকে গুজব বলে উড়িয়ে দিচ্ছে সরকার, শিক্ষাঙ্গণে সন্ত্রাস সৃষ্টি করে সেটা দখল করে নিয়েছে। এই ভোট ডাকাত সরকারকে উৎখাত করতে হলে বেগম জিয়াকে মুক্তির বিকল্প নেই। এই সরকারের কোন নৈতিকতা নেই আর নৈতিকতা হারালে তাদের আর জনগণের প্রতি কোন দায়িত্ববোধ থাকে নাঅ

‘সরকার যা খুশি তাই করছে কারণ তাদের কোনও জবাবদিহিতা নেই। জবাবদিহিতা থাকবেই বা কেন? তারাতো জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হয়ে সরকার গঠন করেনি তাই তারা জনগণকে থোড়ায় কেয়ার করেন না, যা খুশি তাই করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশে বন্যায় ডুবে লাখ লাখ মানুষ মরছে আর প্রধানমন্ত্রী লন্ডনে বসে আরাম আয়েশ করছে। কারণ তার জনগনের প্রতি কোন দায়িত্ববোধ নেই। বন্যা, জলাবদ্ধতা, ধর্ষণ, খুন, ডেঙ্গু, চুরি ডাকাতি, ছেলে ধরা বলে গণপিটুনিতে নিরাপরাধ মানুষ হত্যা আল্লাহ তালার গজব নেমে এসেছে এদেশের ওপর। কারণ ভোট হল মানুষের আমানত, এটা একটা পবিত্র বিষয়, আর যখন কেউ সেই পবিত্রতা নষ্ট বা জোরজবরদস্তি করে হরণ করে তখন সে দেশের উপর আল্লাহ গজবই দেন।’

মানববন্ধনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার ঈদের পরে ঢাকায় আইনজীবীদের মহাসমাবেশের ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ‘আজকে বাংলাদেশের বিচার বিভাগ সরকারের দ্বারা সরাসরি প্রভাবিত হয়। বিচারবিভাগ তার স্বাধীনতা হারিয়েছে বহু আগেই। কারণ সরকার দলের জন্য বিচারবিভাগ এক ধরনের আর বিএনপির জন্য আরেক ধরনের।’

বুদ্ধিজীবীদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘এদেশে ভোটডাকাতির মাধ্যমে এতো বড় একটা লোক দেখানো প্রতারণার নির্বাচন হয়ে গেলো তারপরেও এদেশের বুদ্ধিজীবীর শেখ হাসিনার কথা বলে তারা কখনো এদেশের গণতন্ত্রের পক্ষে কথা বলে না। এটা দেশের জন্য কলঙ্কজনক অধ্যায়। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় স্বৈরাচারী সরকার হলো শেখ হাসিনা।’

মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপিপন্থি সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ খান, বিএনপি নেতা ইকবাল হোসেন মাহমুদসহ বেগম জিয়া আইনজীবী পরিষদের নেতৃবৃন্দ।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ