fbpx
 

শুধু কথায় নয়, কাজেই হোক প্রমান

Pub: সোমবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯ ৮:২৪ অপরাহ্ণ   |   Upd: সোমবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯ ৮:২৪ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ছাত্রদলের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলে সাধারন সম্পাদক প্রার্থী তানজিল হাসানের ১৯টি অঙ্গিকার
কামরুজ্জামান শাহীন॥
আমি মো. তানজিল হাসান বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যুগ্ম সম্পাদক। জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের আসন্ন ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলে আমি সাধারণ সম্পাদক পদ প্রার্থী।আমার রাজনৈতিক জীবনের সচেতনতা, সক্রিয়তা, ত্যাগ, দলের প্রতি কমিটমেন্ট ও যোগ্যতা বিবেচনা করে আমাকে দায়িত্ব দিলে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্বপালন করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করছি।
অঙ্গিকারগুলো-ঃ
১. জালিমের কারাগার থেকে দেশের সর্বাধিক জনপ্রিয় ও জনগণের স্বার্থের পক্ষে আপোষহীন নেত্রী, গণতন্ত্রের মা, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা ও তারুণ্যের অহংকার, আগামীর দেশনায়ক জনাব তারেক রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে রাজপথে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
২.উপযুক্ত কর্মপরিকল্পনার মাধ্যমে সারাদেশের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসগুলোতে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের অবস্থান শক্তিশালী ও সুসংহত করে তোলা হবে।
৩. যথাসময়ে বিভিন্ন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, পৌরসভা, মহানগর, উপজেলা, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিটসমূহে সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠনের দ্বারা সংগঠনের গতিশীলতা নিশ্চিত করা হবে।
৪. দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজসমূহে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের গৌরবময় ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনা এবং ডাকসুসহ অন্যান্য ছাত্রসংসদ নির্বাচনে পূর্ণাঙ্গ প্যানেলে বিজয়ী করার লক্ষ্যে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
৫. সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রতিটি যৌক্তিক দাবিতে সমর্থন দিয়ে ছাত্রদলকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে অধিকতর জনপ্রিয় ও গ্রহনযোগ্য করে তোলা হবে।
৬. আহত নেতাকর্মীদের চিকিৎসার জন্য ‘ইমারজেন্সি মেডিক্যাল সেল’ গঠন ও কারাগারে থাকা নেতাকর্মীদের সার্বিক খোজখবর নেয়ার জন্য ‘বিষেশ টিম’ গঠন করা হবে।
৭. সাধারণ শিক্ষার্থীদের সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে সেগুলো সমাধানের লক্ষ্যে পরিকল্পনামাফিক কর্মসূচি প্রণয়ন করা হবে।
৮. জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য,বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদী রাজনীতির ইতিবৃত্ত এবং সমকালীন বিশ্বের রাজনীতি ও অর্থনীতি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল করার লক্ষ্যে একটি গবেষণা ও প্রশিক্ষণ সেল প্রতিষ্ঠা করা হবে।
৯. জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের জন্য একটি সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ফোরাম প্রতিষ্ঠা করা হবে।
১০. প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং ভর্তি বাণিজ্যসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সকল অনৈতিকতার বিরুদ্ধে কঠোর ও কার্যকর অবস্থান গ্রহণ করা হবে।
১১.স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি শিক্ষার্থীর মাঝে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জীবনাদর্শ, ১৯ দফা ও বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের দর্শন ছড়িয়ে দেওয়া হবে।
১২. সারাদেশের ছাত্রদল নেতাকর্মীদের কর্মকান্ড ও অবদান মূল্যয়নের লক্ষ্যে একটি ডিজিটাল ডাটাবেজ তৈরি করা হবে এবং ছাত্রদলের নিজস্ব অর্থনৈতিক ফান্ড গঠন করে নির্যাতিত নেতাকর্মীদের আর্থিক সহযোগীতা প্রদান করা হবে।
১৩. সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের প্রত্যাশানুরূপ মতামতের ভিত্তিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের স্থায়ী গঠনতন্ত্র প্রণয়নে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গুরূত্বারোপ করা হবে।
১৪. সারাদেশে নিয়মিত সাংগঠনিক সফরের মাধ্যমে তৃণমূল ছাত্রদলকে সংগঠিতকরণ ও উজ্জীবিত রাখার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
১৫. ঐতিহ্যবাহী জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে সংযুক্ত করার মাধ্যমে বাংলাদেশের সবচাইতে দায়িত্বশীল ও গ্রহণযোগ্য ছাত্র সংগঠনের গৌরবোজ্জ্বল ধারায় প্রতিষ্ঠিত করা হবে।
১৬. শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কালজয়ী বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদী দর্শনকে আমরা আমাদের মননে অবিনাশী চেতনা হিসেবে ধারণ করে দেশের ছাত্র সমাজকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করবো।আগামী দিনের বাংলাদেশকে আত্মনির্ভরশীল সুখী-সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে আজকের ছাত্র সমাজকে যোগ্য ও দায়িত্বশীল করে তোলার পবিত্র দায়িত্বপালন করা হবে।
১৭. দেশের স্বাধীনতা রক্ষা,গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা ও অর্থনৈতিক মুক্তি আন্দোলনে ছাত্রদল দেশের সবচাইতে সচেতন,সক্রিয় ও অগ্রগামী ভূমিকা পালন করবে।
১৮. তৃণমূল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত আওয়ামী দু:শাসনের শিকার সকল নেতাকর্মীদের আইনি সহায়তা প্রদানে বিশেষ আইনজীবী ফোরাম গড়ে তোলা হবে।
১৯.শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুযোগ্য উত্তরসূরী বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ কান্ডারী জনাব তারেক রহমানসহ বিএনপি ও ছাত্রদলের হাজার হাজার নেতা কর্মীর নামে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে সর্বাত্মক গণআন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
সাধারন সম্পাদক প্রার্থী মো.তানজিল হাসান এই প্রতিনিধিকে বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জাতীয়তাবাদী আদর্শের উত্তরাধিকারী হিসেবে কাউন্সিলরদের কাছে ভোট চাইছি। আশা করি তারা আমাকে নিরাশ করবে না। আমি সারা দেশে কাউন্সিলরদের কাছে যাচ্ছি এবং আমি দলের জন্য যে ত্য্যাগ নির্যাতন, জেল জুলুমের শিকার হয়েছি এবং মৃত্যু দুয়ার থেকে ফিরে এসেও রাজপথে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন সংগ্রাম থেকে একচুল পিছ পা হয়নী। আমি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর কাউন্সিলরা তাদেও মূল্যবান আমানত ভোট দিবে এই আশা করছি।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ