fbpx
 

অপরাধী সাব্যস্ত হলে শাস্তি হবে, আমি পালাব না: যুবলীগ চেয়ারম্যান

Pub: সোমবার, অক্টোবর ৭, ২০১৯ ১১:৪৪ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঢাকা: রাজধানীসহ সারা দেশে গত ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের পর আলোচনায় আসে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন আওয়ামী যুবলীগের নাম। ওই দিন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তারের পর পুলিশ প্রশাসন নিয়ে মন্তব্য করে সমালোচিত হন সংগঠনের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। তিনি বলেন, এত দিন কি পুলিশ র্যাব আঙুল চুষছিল? তাদের জানার বাইরে এসব ক্যাসিনো চলত? তাদেরও গ্রেপ্তার করা হোক।

ক্যাসিনোকাণ্ডে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার হওয়া সবার সঙ্গেই সংগঠনটির সম্পৃক্ততা থাকার প্রমাণ পাওয়া যায়। এর মধ্যে গতকাল র্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট ও সহসভাপতি এনামুল হক আরমান। গ্রেপ্তারের কিছু সময় পরই তাঁদের বহিষ্কার করা হয়।

সংগঠনটির মহানগরের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী নেতা গ্রেপ্তারের পরই কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর ব্যাংক হিসাব তলব ও দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার। এ বিষয়ে বিমানবন্দর ও স্থলবন্দরগুলোতে সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা পাঠানো হয়। নেওয়া হয় বাড়তি সতর্কতা। এর আগে সম্রাটের বিষয়েও একই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল।

এ নিয়ে ওমর ফারুক চৌধুরী একাধিক গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমি দেশ ছেড়ে যেন পালাতে না পারি এই সতর্কতার বিষয়ে আমি কোনো সংবাদ পাইনি। আপনাদের লেখালেখির মাধ্যমে জানতে পারলাম। আপনারা না লিখলে হয়তো জানতাম না। এখনো এ বিষয়ে দল বা সরকার থেকে কোনো নির্দেশনা আমার কাছে আসেনি।’

ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, ‘আমি দেশ ছেড়ে পালাব কেন? আমি দেশেই আছি, দেশেই থাকব। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নন। আমি যদি কোনো অপরাধ করি তাহলে আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে।’

যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমি মানুষ, আমি রাজনীতি করি। আমার দেশত্যাগে যদি নিষেধাজ্ঞা দিয়ে থাকে সরকার তাহলে আমার সেটা মেনে নিতে হবে। আমি বলতে পারি না যে আমি সম্পূর্ণ নিরপরাধ। আমার অপরাধ পেলে অবশ্যই আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবে প্রশাসন। তবে আমি দেশ ছেড়ে পালাব না।’

নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ওমর ফারুক চৌধুরী আরো বলেন, বিচারক কখন শাস্তি দেন? যখন আপনি নিজের মনের কাছে অপরাধী থাকবেন। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি আমি অপরাধী না। তাহলে আমি দেশ ছেড়ে পালাব কেন? পালিয়ে গেলে তো বিচারকের শাস্তি দিতে সুবিধা হবে। আমি অপরাধী না- এ কথা বলার সুযোগ থাকবে না। যেহেতু সব কিছু একটা বিচারিক প্রক্রিয়ার দিকে যাচ্ছে সেহেতু বিচারে যা হয় হবে, আমি অপরাধী সাব্যস্ত হলে আমার শাস্তি হবে। আমি পালাব না।’

সম্রাটের বহিষ্কারের বিষয়ে যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেন, ‘এত দিন আমরা অভিযোগ শুনছি, কিন্তু কোনো দালিলিক প্রমাণ পাইনি। যখন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাঁকে গ্রেপ্তার করল তখন আমরা দালিলিক প্রমাণ পেয়েছি। সেই জন্যই তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।’

গ্রেপ্তারের পর বহিষ্কার করা হলো, কিন্তু সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠার পর কেন করা হয়নি জানতে চাইলে ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের কাছে আগে অভিযোগ না এলে আমরা কী করতে পারি? বা আমি কাকে দায়িত্ব দেব? আমার অভিজ্ঞতার আলোকে এতটুকু বলতে পারি— কেউ সব কিছুর অধিকারী বা সব কিছুতে পারঙ্গম হতে পারে না।’

যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা রাজনীতি করি। আমাদের কাজ কী? আমাদের কাজ হচ্ছে দলকে সুসংগঠিত রাখা। দলের মধ্যে কোনো ঝামেলা থাকলে সেটা সমঝোতা করা, সবাইকে ঐক্যবদ্ধ রাখা, মীমাংসা করা, ফয়সালা করা। আমরা সেটি নিয়ে কাজ করি।’


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ