fbpx
 

ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের কমিটিতে ছাত্রলীগের রাসেলকে আহবায়ক করার পায়তারা!

Pub: Friday, November 8, 2019 3:45 PM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার ॥ খুব শিগগিরই ঘোষনা হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটি। এ ছাড়াও জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় ,জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় , ঢাকা মহানগর , ঢাকা কলেজ ,তিতুমীর কলেজ, কবি নজরুল সরকারী কলেজের কমিটি নিয়ে ও কাজ চলছে বলে দলীয় সূত্রে জানাগেছে। এসব কলেজে আপাতত আহবায়ক কমিটি ঘোষনা হতে পাওে বলে সূত্র জানায়। বিশেষ করে ঢাকা কলেজের আহবায়ক কমিটিতে স্থান পেতে নেতাদের বাসায় দৌড় ঝাঁপ শুরু করেছে সম্ভাব্য পদ প্রত্যাশীরা। ছাত্রদলের সুপার ইউনিট ঢাকা কলেজের কমিটি নিয়ে আলোচনা এখন তুঙ্গে। সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রত্যাশীত পদ পেতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর কেন্টিন ও টিএসসিতে নিজেদের অবস্থান করতে মিটিং মিছিলে যোগ দিয়ে জানান দিচ্ছে। এ দিকে ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের কমিটিতে গুরুত্বপূর্ন পদে স্থান পেতে মরিয়া হয়ে উঠছে বিতর্কিত ছাত্রলীগের সাবেক ক্যাডার দেলোয়ার হোসেন রাসেল । তিনি এক সময় পাবনা সরকারী বুলবুল কলেজে অধ্যায়ন কালীন সময় শিবিরে যোগ দিয়ে ছাত্র রাজনীতিতে হাতে খড়ি। বুলবুল কলেজের রাজনীতি করা কালীন শিবিরের সঙ্গে ছিল তার দহরম মহরম। ঢাকা কলেজে ভতির্ হয়ে লেস পাল্টে হয়ে যান তিনি ছাত্রলীগ। এরপর থেকে শুরু করে নানা অপকর্ম। অনুসন্ধানে জানাযায়, ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন রাসেল ঢাকা কলেজে ভর্তি হয়ে নর্থ হলে ১২০ নং কক্ষে থাকা কালীন সময় ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আবদুল বাসেত গালিবের সঙ্গে রাজনীীত শুরু করেন। গালিবের বাড়ি পাবনা হওয়ায় খুব দ্রুত তার আস্তা ভাজন হয়ে উঠে দেলোয়ার হোসেন রাসেল। গালিবের ক্যাডার ভিত্তিক রাজনীতির মূল হাতিয়ার হয়ে উঠেন তিনি। ২০০৯ সালে ইসলামী ব্যাংক নিউমার্কেট শাখার সামনে থেকে ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা ছিনতাই করে রাসেল। এ ব্যাপারে নিউমার্কেট থানায় মামলা রুজু করা হয়। রাসেল কে আসামী করা হয় ঐ মামলায়। গ্রেফতার করা হয় রাসেল কে। নিউমার্কেট থানা পুলিশ ছিনতাই হওয়া টাকা উদ্ধার করে। ছাত্রলীগ নেতা গালিব রাসেল কে মুচলেকা দিয়ে ছাড়িয়ে আনে। উল্লেখ্য যে, গালিব পাবনার আওয়ামীলীগের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও এমপি সামসুল হক টুকুর ঘনিষ্ঠ আতœীয়। অনুসন্ধ্যানে আরো জানাযায়, পাবনা থেকে ঢাকায় আসার সময় কাশিনাথপুরে অস্ত্রসহ র‌্যাবের হাতে আটক হয় এই দেলোয়ার হোসেন রাসেল। সে ২০১০ সালের ১৪ জানুয়ারী টিচার্স ট্রেনিং কলেজের এক ছাত্রিকে উত্যক্ত করা নিয়ে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগ ও টিচার্স ট্রেনিং কলেজের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। রামদা হাতে সামনের সারিতে মারমুখী ভুমিকায় থাকতে দেখা যায় ছাত্রলীগ নেতা রাসেলকে। সে সময় সংঘর্ষের ছবি বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়। ২০১০ সালের ১৮ মার্চ ঢাকা কলেজে দক্ষিানায়ন নিয়ন্ত্রন নিয়ে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের শিহাব-রনি ও তারেক, গালিব ,টিটু পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। পরে পুলিশী অভিযানে ছাত্রলীগেরে সাবেক নেতা আঃ বাসেত গালিব ও দেলোয়ার হোসেন রাসেল সহ ৭১ জনকে গ্রেফতার করে । এ সময় গালিবের কাছ থেকে পুলিশ অস্ত্রসহ ৫২ রাউন্ড গুলী উদ্ধার করে। এ নিয়ে নিউমার্কেট থানায় অস্ত্র আইনে মামলা হয়। বিভিন্ন অপকর্মের জন্য রাসেল কে হল থেকে বের করে দেয় ঢাকা কলেজ সাবেক ছাত্রলীগ নেতা টিটু। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গুলশান বিএনপির কার্যালয়ের এক সাবেক কর্মকর্তা জানান বিএনপির চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয়ে পাবনা বিএনপির এক প্রভাবশালী নেতার সাথে সখ্যতা গড়ে তোলে এই রাসেল। ঐ বিএনপি নেতার হাত ধরে বিএনপি এবং ছাত্রদলের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলে দেলোয়ার হোসেন রাসেল। বর্তমানে পাবনাপন্থীদের ইন্দনে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা দেওলোয়ার হোসেন রাসেল কে ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক করার পায়তারা করছে বলে জানিয়েছে নাম না বলা শর্তে ঢাকা কলেজের কয়েকজন ত্যাগী ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। এ নিয়ে ৭ নভেম্বর ঢাকার জাতীয় দৈনিক আনন্দ বাজার পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হওয়ার পর বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় বইছে। ত্যাগী নেতা কর্মীরা বলছেন রাসেল নিজেই ছাত্রলীগের নেতা ছিলেন। কি করে ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে কারো পিষ্ঠপোষকতায় ছাত্রলীগকে দলীয় বড় পদে দেয়ার চেষ্টা করে।তাহলে দীর্ঘ ১২ বছর ধরে আওয়ামীলীগের স্বৈরাচারী রাজনীতির বিরুদ্ধে রাজপথে থেকে জেল জুলুম সহ্য করে মার খেয়ে পঙ্গুত্ব বরন করে রাজনীতিকে টিকিয়ে রখেছে তাদেরকে কোথায় রাখা হবে। বিষয়টি কেন্দ্রীয় বিএনপি তদন্ত করে তড়িৎ ব্যবস্থা নিবেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ