আমার পরিনতিও বেগম জিয়ার মত হতে পারে : ভিপি নূর

Pub: Sunday, October 18, 2020 12:46 AM
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, আইন করলেই ধর্ষণ বন্ধ হবে না। ফাঁসির আদেশ দিয়ে ধর্ষণ ঠেকানো যাবে না। মূলত আমাদের দেশে যে বিচারহীনতার সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে। রাজনৈতিক প্রভাবে যেভাবে অপরাধীরা পার পেয়ে যাচ্ছে। ফাঁসি দিলেও তাতে ধর্ষণ বন্ধ হবে না।

তিনি বলেন, সবাই দেখেছে কারা ধর্ষণ করছে, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে যে দেলোয়ার বাহিনী ধর্ষণে আলোচনায় এসেছে সে কিভাবে এসেছে সবাই তা দেখেছে। সে উঠে এসেছে নির্বাচনের কেন্দ্র দখলের মাধ্যমে। ওসি প্রদীপ কিভাবে একজন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তাকে গুলি করে। এটা শুধুমাত্র ভারতীয় ব্যাকআপে। কারণ তিনি মার্ডার করার পর ভারতীয় দূতাবাসে যোগাযোগ করেছেন এটা আমার কথা নয় তদন্ত প্রতিবেদনের কথা। যখন ওসি থেকে শুরু করে চৌকিদার লেভেলে সর্বত্রই ভারতীয়দের আধিপত্য এবং ভোট ডাকাতির জন্য দেলোয়ার বাহিনীদেরকে সরকার তৈরি করে, তখন এ সরকারের অবসান না ঘটানো পর্যন্ত ধর্ষণ থেকে এ জাতিকে রক্ষা করা যাবে না।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডি ধানমন্ডিস্থ গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভাষাসৈনিক আব্দুল মতিনের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

নুর বলেন, এই স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে ৯০ এ যেভাবে আন্দোলন হয়েছিল সেভাবেই আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। আমাদের দাবি একটাই যদি অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সংবিধান সংশোধন করে আবার তত্ত্বাবধায়ক সরকার পূর্ণস্থাপনা করতে হয় তাহলে সেটাই করতে হবে রাষ্ট্র ও জনগণের জন্য। আইন ও জনগণের জন্য তাই রাষ্ট্র এবং জনগণের প্রয়োজনে আইনকে ১০০ বার সংশোধন করা যাবে।

নূর বলেন, আলুর দাম ৫০ টাকা, মোটা চালের দাম ৬০ টাকা। কীভাবে এসব দাম বাড়ছে। সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে এসব নিয়ন্ত্রণে‌। বর্তমানে না আছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের কন্ট্রোলে, না আছে বাজারব্যবস্থা তাদের কন্ট্রোলে, না আছে দেশের অর্থনীতি তাদের কন্ট্রোলে। আজকে যদি চীন বলে তোমাদের টাকা দেব না, উন্নয়ন কাজ থেমে যাবে। কারণ সরকারের সেই কৌশল নেই যে কারো সাথে সম্পর্ক অবনতি হলে কীভাবে সেটি মেকআপ করতে হয়। যে কারণে ভারত কোনো কিছু রফতানি বন্ধ করে দিলেই সাথে সাথে ১০০ টাকা দাম উঠে যায়। বর্তমানে সরকারের না আছে পররাষ্ট্রনীতি, না আছে অর্থনীতি। আছে শুধু ক্ষমতায় থাকার নীতি।

সরকার পতনের উদ্দেশ্যে নূর বলেন, বর্তমানে সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য যত মানুষের লাশ পড়ুক, যতই মানুষের রক্তের বন্যা ভেসে যাক, তবু তারা ক্ষমতা ছাড়বে না। কিন্তু আমরা যদি ঐক্যবদ্ধ হই আমি চ্যালেঞ্জ করলাম আপনারা কালকে নামেন পরের দিন দেখবেন পদত্যাগ করতে বাধ্য হবে। এরশাদের পতনের আগের দিনও জেনারেল নুরুদ্দিনরা বৈঠক করেছিলেন। কিন্তু যখন জনগণ নেমে গেছে তখন তারা বলেছে আমরা আর আপনাদের সাথে নাই। তাই বর্তমানে জনগণের ঐক্যবদ্ধ গণ আন্দোলনের বিকল্প নাই। আশা করছি খুব শিগগিরই সে গণআন্দোলনের ডাক পাবেন।

নূর বলেন, যেভাবে আমাকে টার্গেট করে একের পর এক মামলা দেয়া হচ্ছে। ছাত্রলীগ যুবলীগ দিয়ে হামলা করছে। কিন্তু আমি তো থেমে যায়নি। যেভাবে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে দুই বছর মিথ্যা মামলায় কারাগারে রেখেছে। সেখানে আমি নুর কিছুই না। আমার তো খালেদা জিয়ার মতো লাখ লাখ নেতাকর্মী নেই। কিন্তু আমি জানি আমার পরিনতিটাও বেগম জিয়ার মত হতে পারে। আওয়ামী লীগের নেতা মাকসুদ কামাল তো টকশোতে বলেছেন যে, ভিপি নুরের পরিণতিও খালেদা জিয়ার মত হবে। কিন্তু আমি বলছি আমার একটা জীবনের বিনিময়ে যদি এদেশের ১৮ কোটি মানুষ মুক্তি পায় তাহলে আমার জীবন আমি উৎসর্গ করলাম। কোনো গণআন্দোলন ত্যাগ ছাড়া সফল হয়নি। তাই জনগণের প্রতি অনুরোধ থাকবে এখন আর বসে থাকার সময় নেই। খুব শিগগিরই ডাক আসবে গণআন্দোলনের।

মধ্যবর্তী নির্বাচন প্রসঙ্গে সাবেক ভিপি নূর বলেন, আপনারা (সরকার) দেখেছেন সারা দেশ গর্জে উঠেছে। আপনারা চাইলেও জোর করে আর ক্ষমতায় থাকতে পারবেন না। কিন্তু যদি নিরাপদে ফিরতে চান তাহলে নিজেরাই একটা মধ্যবর্তী নির্বাচনের ব্যবস্থা করেন। সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের জন্য যদি তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করতে হয় তবে তাই করুন। যদি নিরাপদে ফিরতে চান। আর যদি এরশাদের মতো কিংবা পৃথিবীর যে সকল স্বৈরশাসকের করুণ পরিণতি হয়েছে সেটা যদি চান তাহলে জনগণের গণআন্দোলনের জন্য অপেক্ষা করুন।

ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য নঈম জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকী, বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী, জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধের প্রজন্ম আহ্বায়ক কালাম ফয়েজী, মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক কাউন্সিলর মোঃ ফরিদ উদ্দিন প্রমূখ।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নিউজটি পড়া হয়েছে 118 বার

Print

শীর্ষ খবর/আ আ