fbpx
 

অনেকেই জানে না খালেদা জিয়া জেলে!

Pub: বুধবার, এপ্রিল ৪, ২০১৮ ৪:৫৮ অপরাহ্ণ   |   Upd: বুধবার, এপ্রিল ৪, ২০১৮ ৪:৫৮ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মা জননী-কে মুক্ত করতে চাই!
আমাদের একটী টিম গিয়েছিল ঢাকার বাহিরের কোন এক জেলায় লিফলেট বিতরণ করতে” একজন বৃদ্ধ মহিলার হাতে একখানা লিফলেট দেওয়ার পর তিনি বেগম খালেদা জিয়ার ছবির উপর আঙুল দিয়ে বলেছিলো’ বাবা’রা গত কয়েক মাস যাবত খালেদা জিয়া-রে টেলিভিশনে দেখায় না কেন?
তার মানে ওনি বা ওনার মত অনেকেই এখনো জানেই না দেশ নেত্রী কারগারে”
যদিও পুরো ঘটনার বিস্তারিত আমি জানতে পারিনি’তবে এটাই যে বাস্তবতা তা অস্বীকার করার কিছু নাই!!
গণতান্ত্রিক আন্দোলন করে নেত্রী-কে মুক্ত করার জন্য আমরা আর কত কাল অপেক্ষা করবো?
প্রশ্ন ঊঠেছে’ ওনি কারাগারে কত খানি সুস্থ আছেন?বা কারাগারে কি ওনাকে কোন ধরণের মেডিসিন প্রয়োগ করে ধীরে ধীরে মৃত্যু র কোলে পাঠানোর চেষ্টা চলছে?
যাই হোক’ মুলত আমরা যারা সাধারণ কর্মী তারা কারো উপর আশ্বস্ত হতে চাচ্ছিনা”
এখানে মুল সমস্যা হচ্ছে ‘অতীতে আমরা দালাল আর মিরজাফর দের ভিড়ে বার বার হারিয়ে গেয়েছিলাম!
আমরা তখনি শান্ত হবো’ যখন দেখতে পাবো আমাদের নেত্রী/দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া’ ওনার বাসভবনে বসে দেশ বাসীর ঊদ্দেশ্যে ভাষণ দিচ্ছেন!
অর্থাৎ নেত্রী-কে চোখে দেখার আগ অবধী আমরা শান্ত হতে পারছিনা!
এখন আসুন’ আদৌ কি নেত্রীর মুক্তির কোন পথ আমরা দেখতে পাচ্ছি?
শুরু-তে আমাদের যে বিষয় গুলোর দিকে নজর দেওয়া উচিৎ!
এক:আইনি ভাবে…
দুই:সকলের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে বাধ্য করা….
ইতিমধ্যে আমরা প্রথম ধাপে ব্যর্থ হয়েছি’ অর্থাৎ আমাদের কি এখনো বুঝতে বাকি আছে’ যে অন্তত এদেশে আইনের শাষণ বিন্দু মাত্র ও অবশিষ্ট নাই যে?
যদি আমরা সেটি বুঝতে সক্ষম হই তবে আমাদের উচিৎ হবে বিকল্প রাস্তা খুঁজে বের করার!
বিকল্প রাস্তা’ অর্থাৎ সকল দাবী উপস্থাপন করে দেশ বাসীকে এক কাতারে এনে রাজপথে তীব্র আন্দোলন!
লক্ষ্য করছি’ দেশের সাধারণ জনগণ কে আন্দোলনে আসতে আগ্রহী করতে এত দিনে কেবল মাত্র কিছু লিফলেট বিতরণ করা ছাড়া আর তেমন কোন দৃশ্যত কর্মসূচি হয়নি”
তাও আবার দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল গুলোর কর্মী রা প্রতিনিয়তই অভিযোগ করছেন তাদের এলাকায় যিনি বা যারা লিফলেট বিতরণ সহ নানা কর্মসূচি পালনের ক্ষেত্রে অভিভাবকত্বে ভুমিকা পালনের কথা তারা সকলে নিজ নিজ এলাকা থেকে বহু আগেই বিতাড়িত “জানা যায় অধিকাংশ ই কর্মী দের বিপদে ফেলে ঢাকায় এসে রিজভী সাহেব দের বগলের নিচে বসে কুতকুতাচ্ছেন”
নেত্রী-কে দেশের বাহিরে প্যারলে মুক্তি নিয়ে যেতে দেওয়া ঠিক হবে না”
তিনি কারাগারে আছেন’ তাতে কি?অন্তত ওনার সন্তান রা তো সাহস পাচ্ছে মা জননী আমাদের কাছেই আছেন বলে”
তবে মুল কথা হচ্ছে’ ওনাকে আর কারাগারে থাকতে দেওয়া যায় না”
আইনি প্রক্রিয়ায় নেত্রীর মুক্তি কখনোই সম্ভব না”
আসুন’ রাজপথে আন্দোলন গড়ে তুলি………..!
কিছুদিন পর পর বিক্ষোভ মিছিল/অনশন এর মত ঘুম কর্মসূচী দিয়ে যারা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আশা করেন তারা নিশ্চিত আবাল”
এখন আসুন’ আমাদের রাজপথের আন্দোলন কে ত্বরান্বিত করার জন্য’ আরো কিছু কর্মসূচী যোগ করি!
শুধু কেবল রাজধানী ঢাকায় ই নয়’ বরং প্রত্যেক টি জেলা/উপজেলায় তৃনমূল কর্মী দের ঐক্যবদ্ধ করার প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে”
আপনারা যারা কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আছেন,তারা বাদে দেশের ৩০০ আসনের আগামী দিনে মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রত্যেক নেতাকে ডাক দিয়ে নির্দেশ দেওয়া হোক তারা যেন তাদের নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে অবস্থান নেয়”
এবং তারা তাদের কর্মী দের সাথে নিয়ে প্রত্যেক টি বাড়ির প্রতিটি ঘরের দরজায় কড়া নাড়বেন”
স্ব-শরীরে উপস্থিত হয়ে গ্রাম গঞ্জের সাধারণ মানুষ কে বুঝাতে হবে এই আন্দোলন কেবল বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্যই নয় বরং এদেশের মানুষের অধিকার আদায়ের”
প্রত্যেক টি মানুষ কে বুঝাতে হবে স্বৈরাচার হাছিনা কিভাবে লুটপাটের মাধ্যমে আমাদের সকলের রিজিকে হাত দিচ্ছে”
মানুষ কে বুঝিয়ে দিতে হবে হাছিনার অবৈধ সরকারের ছত্রছায়ায় থাকার কারণে শিশু সহ সকল নারী দের ধর্ষণ কারীরা দিব্যি আরামে ঘুরে বেড়ায়!
এক কথায় প্রত্যেক টি পাড়া মহল্লায় মুক্তির মঞ্চ তৈরী করতে হবে”শুধু মঞ্চ তৈরীর নির্দেশ দিলেই হবে না বরং স্থানীয় সকল নেতাদের প্রতি কড়া নির্দেশ থাকবে এই সমস্ত মুক্তির মঞ্চ গুলোর সার্বিক তদারকি যেন করতে বাধ্য থাকে”
দেশের প্রত্যেক টি গণতান্ত্র কামী মানুষের রক্ত কণিকায় আগুন ধরাতে হবে”
শুধু মাত্র দালাল মিডিয়ার উপর নির্ভর করা কিংবা তাদের সমালোচনা করলে লাভ হবে না”
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং এ মাধ্যমে যারা লড়াই করেন তাদের প্রতি নির্দেশনা দিতে হবে’ আরো গতিময় হতে”
প্রচার প্রচারণার পাশাপাশি কর্মী বান্ধব হতে হবে প্রত্যেক টি ইউনিটি-কে!
সর্বোপরি আমরা যেটা মনে করি…..হাছিনার আজ্ঞাবহ আদালতের দ্বারস্থ হয়ে তেমন কোন সুফল আসবে না”
বরং আইনি লড়াই তে সফলতা পেতে হলে রাজপথের চাপ তীব্র করার কোন বিকল্প নাই”
কাটেসী,Nazim Uddin Shimul


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ