আজকে

  • ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২৬শে মে, ২০১৮ ইং
  • ১০ই রমযান, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

কারাবন্দি “মা” খালেদা জিয়াকে দুই সন্তানের খোলা চিঠি……

Pub: রবিবার, মে ১৩, ২০১৮ ৬:০১ পূর্বাহ্ণ   |   Upd: রবিবার, মে ১৩, ২০১৮ ৬:৪৫ পূর্বাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

মাননীয় সাবেক প্রধানমন্ত্রী আপোষহীন দেশনেত্রী ও দেশ মাতা “মা” বেগম খালেদা জিয়া, আসসালামু আলাইকুম, আপনি বাংলাদেশের একজন অসাধারন জনপ্রিয় নেত্রী,আপনি বাংলাদেশের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী, তিন তিন বার আপনি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন। আজ পর্যন্ত আপনার জনপ্রিয়তা হ্রাস পায়নি, আপনি নির্বাচনে যে সংসদীয় আসনে নির্বাচন করেন সেখানে পাহাড় সমান ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন, একসাথে পাঁচটি আসনে দাঁড়ালেও নির্বাচিত হয়েছেন। আপনার জনপ্রিয়তায় ভাগ বসানো নেতা এখনো বাংলাদেশে জন্মায়নি। দীর্ঘ সময় আপনি ক্ষমতার বাহিরে থাকলেও আপনার জনপ্রিয়তার কোন ঘাটতি হয়নি।

আপনি চিকিৎসা শেষে লন্ডন থেকে বাংলাদেশে আসলে আপনাকে বাংলাদেশের জনগণ যে স্বাগত জানিয়ে ছিল, তা রীতিমত বিস্ময়কর। আপনি যখন রোহিঙ্গাদের দেখতে কক্সবাজার সফরে বের হলেন তখন বাংলাদেশের আপামর জনসাধারণ আপনাকে যে বিরল সম্মানে ভূষিত করেছিল তা ইতিহাস হয়ে হয়ে গেছে। বাংলাদেশের জনগণ জিয়া পরিবারের প্রতি কি পরিমান ভালবাসা তার কিছুটা দেখিয়েছে যেমন আপনার পুত্র আরাফাত রহমান কোকোর নামাজে জানাজায়,সেদিন বিশ্ব দেখেছে লক্ষ লক্ষ মানুষের ঢল যতদূর চোখ যায় শুধু মানুষ আর মানুষ, বায়তুল মোকারমের উত্তর গেইট থেকে নয়া পল্টন আর দক্ষিণ গেইট থেকে নবাবপুর পর্যন্ত লোকে ছিল লোকারণ্য । আর আপনার স্বামী বাংলাদেশের রাখাল রাজা মহান স্বাধীনতার ঘোষক প্রয়াত শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের যে নামাজে জানাজা মানিক মিয়া এভিনিউতে অনুষ্টিত হয়েছিল সেদিন তিল ধারণ ক্ষমতা ছিল না । অনেক পর্যবেক্ষকের মতে ইহাই ছিল পৃথিবীর সর্ববৃহত্ত্বর জানাজা ।

আপনাকে বাংলাদেশের জনতা আপোষহীন নেত্রী,দেশ নেত্রী, লৌহমানবী বিশেষ বিশেষনে ডাকে তার কারন হলো আপনি কঠিন নির্মম পরিস্হিতিতে ও ইস্পাতকঠিন দৃঢ় থাকতে পারেন যেমনি ছিলেন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান । আপনি যেকোন সিদ্বান্ত নিলে কেউ তা টলাতে পারেনা। এজন্য আপনার ব্যক্তিত্বকে সবাই শ্রদ্ধা করে। এই ব্যক্তিত্ব তৈরী হয়েছে আপনার মার্জিত কথা বলা, রুচিবোধ পোষাক আশাক আপনার লাইফ স্টাইল সর্বপরি আপনি বাংলাদেশের প্ৰথম রাষ্ট্রপতি, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সহধর্মিনী। আপনার কোন নির্দেশ পেলে কোটি জনতা রাস্তায় দাঁড়িয়ে যায়, জনগণ জানে দেশের স্বার্থে আপনি কখনো কোন হটকারী সিদ্বান্ত গ্রহণ করেন না। আপনার মধ্যে বিশেষ একটা গুন্ পরিলক্ষিত আপনি কখনো কোন হালকা কথা বলেন না, তাই বাংলাদেশের জনগণ আপনাকে আলাদা সম্মান ও শ্রদ্ধা করে। কেমন করে মানুষ স্বাধীন ভাবে ও নির্ভয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে কি ভাবে জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করবে তা আজ মানুষ ভুলে গেছে। স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের জন্য আপনি আপোষহীন ভাবে সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছেন । বাংলাদেশের আটারো কোটি জনগণ অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে সুষ্ট নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে নির্বাচিত করে বাংলাদেশের রাষ্ট্র ক্ষমতায় আপনাকে আবারো বসানো ।

যদিও ভোটার বিহীন নির্বাচনে দ্বিতীয় মেয়াদে ভারতের প্রত্যক্ষ মদদে ২০১৪ সালে ক্ষমতা দখল করার পর শুরু হয় আওয়ামী লীগ সরকারের মাইনাস ওয়ান খেলা। মাইনাস ওয়ান মানে আপনাকে রাজনীতি থেকে আউট করে দেওয়া। এই পর্যায়ে তারা আপনাকে কারাগারে ঢুকাতে সক্ষম হয়েছে।

বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে দেশনেত্রী আপনাকে মুছে দিতে কতই না হিংস্র প্রয়াস চলছে। কিন্তু রাজনীতি করার, দেশটাকে বাঁচাবার, জাতিকে গণতন্ত্র দেবার ইচ্ছেটা কখনও আপনার মনবল মরেনি, মরবেও না। ৩৫ বছরের রাজনীতিতে তিন নম্বর স্বৈরশাসনকে গণজাগরণের মধ্য দিয়ে বিদায় দিতে আপনি দৃঢ়সংকল্প। আপনার আপোষহীন সংগ্রামের চূড়ান্ত বিজয় অবশ্যম্ভাবী।

সম্প্রতি আপনাকে কে এশিয়ার নেলসন ম্যান্ডেলা হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন আধুনিক মালয়েশিয়ার রূপকার মাহাথির মোহাম্মদ বলেন ” সাউথ আফ্রিকার কিংবদন্তি নেতা নেলসন ম্যান্ডেলাকে তৎকালীন স্বৈরাচারী সরকার যুগের পর যুগ নির্বাসন এবং কারাবন্দী করে রাখায় তিনি যেভাবে বিশ্বনেতা হয়ে উঠেছিলেন, ঠিক তেমনই বাংলাদেশের রাজনৈতিক নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাদণ্ডের দেওয়ার কারণে তিনিও অচিরেই বিশ্বনেতা হিসেবে আবির্ভূত হবেন।

ইতিহাসের এই আলোকিত সত্যকে, কে অস্বীকার করবেন ? দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে বাংলাদেশের রাজনীতিতে আপনি সর্বোচ্চ জনপ্রিয়তা নিয়ে বিরাজমান। সবচেয়ে বেশি আসনে নির্বাচিত হবার কৃতিত্ব আপনারই। তিনবারের প্রধানমন্ত্রী আপনি। দেশবাসীর অকুণ্ঠ জনসমর্থন আর সহানুভূতি আপনাকে ঘিরেই আছে। আপনি রাস্তায় নামলেই লক্ষ মানুষের ঢল। তরুণেরা আপনার গাড়ি ঘিরে রাখে লৌহবেষ্টনী দিয়ে অতন্দ্র প্রহরীর মতন। আপনার রাজনীতির শুরুই হয়েছে এরশাদের স্বৈরশাসনকে ‘মানি না’, এই ইস্পাত কঠিন উচ্চারণের মধ্য দিয়ে। ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ এবং স্বৈরাচারী এরশাদের অশুভ আঁতাতে বাংলাদেশের গণতন্ত্র নৈরাজ্য নীতিহীনতার ধ্বংসস্তূপে পড়ে আছে। তা থেকে বাঁচানোর একমাত্র উজ্জ্বল বাতিঘর আপনি ।

আপনি বুক ভরা সাহসে লড়াইটা জনগণের পক্ষে একাই করেন। নব্বইয়ে তিন জোটের রূপরেখা থেকে আজ অব্দি সেই সৎ, নীতি-নিষ্ঠ রাজনীতি ধরে রেখেছেন আপনি । কেউ বলতে পারবেন না,আপনি বাংলাদেশের কোনো অবৈধ শাসনকে ‘আই এম নট আনহ্যাপি’ অথবা ‘আমার আন্দোলনের ফসল’ বলে স্বীকৃতি দিয়েছেন। এরশাদ এবং মঈনউদ্দিন-ফখরুদ্দীনের স্বৈরতন্ত্রকে আপনি অনমনীয় আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বিদায় করেছেন। বর্তমান দুনিয়ায় এমন কি কোন রাজনৈতিক নেতার কৃতিত্ব আছে দু’টি সামরিক শাসন হঠানোর? সেই কৃতিত্ব আপনারই আছে। লক্ষকুটি মানুষ কায়মনে সৃষ্টি কর্তার কাছে দোয়া করছে নফল রাখছে আপনারই জন্যে আপনার নেতৃত্বেই পতন হবে তৃতীয় ফ্যাসিস্ট স্বৈরশাসকের।

আপনার নেতৃত্বে গণমানুষের অনেক আন্দলোন সফল হয়েছে, আবার সুবিধাভোগী ও সুবিধা সন্ধানীদের জন্য তা বিফলও হয়েছে অনেক বার, কিন্তু মূল চিন্তা-ধারণা থেকে মুক্তিকামী স্বাধীনচেতা মানুষ সরে আসেনি। শত অন্যায়, জুলুম-নির্যাতনের বিরুদ্ধে গণমানুষের উত্থান দেখার জন্য সময় লাগতে পারে, তবে উত্থান অনিবার্য।

জাতি অবগত আপনি একটু আপোস করলে একটু নমনীয় ভাব দেখলে বোধ হয় এই বৃদ্ধ বয়সে জেলখানার প্রকোষ্টে থাকতে হতো না। কিন্তু আপনি আপোসের পথে যাননি। সংগ্রামের বন্ধুর পথ বেছে নিয়েছেন,কারন আপনি দেশকে ভাল বসেন,জাতিকে ভাল বাসেন মানুষকে ভাল বাসেন আপনি চেয়েছেন জাতির মুক্তি দেশের মুক্তি মানুষের মুক্তি । এ সংগ্রামে ইনশাআল্লাহ আপনি আবারও জয়ী হবেন, দেশবাসীর এটাই দৃঢ় বিশ্বাস।

উল্লেখ্য যে কোন স্বাধীকার আন্দলোন সংগ্রামে রক্ত না ঝরালে আন্দলোন সফল হয় না । বাংলাদেশের মানুষ অতীতে ও ফ্যাসিটের শাসন মেনে নেয়নি আগামীতে ও মানবেনা জনগণ, এখন শুধু দেখার বিষয় একটি গণঅভ্যুত্থানের। সেদিন বেশি দূরে নয় অতি সন্নিকটে। বাংলাদেশের গণতন্রকামী মানুষ ও ছাত্রজনতা গণতন্রের জন্য আবার জেগে উঠবে, আপনাকে মুক্ত করে ফ্যাসিস্টের কবর রচনা করবে, গণতন্ত্রের বিজয় নিশান উড়াবে, দেশনেত্রী আপনার ও দেশ নায়ক তারেক রহমানের নেতৃত্বে আবার নতুন সূর্য উঠবে মানুষ দেখবে আশার আলো ফিরে আসবে গণতন্ত্র ও মানুষের ভোটের অধিকার, প্রতিষ্টিত হবে জনগনের সরকার।মানুষ ফিরে পাবে বাঁচার অধিকার মানবতার অধিকার।
বি:দ্র :পরিশেষে আপনার সুসাস্হ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

লেখক: প্রধান সম্পাদক ডাঃ আব্দুল আজিজ

উপদেষ্টা সম্পাদক : সায়েক এম রহমান
শীর্ষ খবর ডটকম কম

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 3450 বার

 
 
 
 
মে ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
« এপ্রিল    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
 
 
 
 
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com