মাননীয় ডাক-টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রীকে হাওরবাসীর খোলা চিঠি

Pub: মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৩, ২০১৮ ৬:৩৩ অপরাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, মে ১২, ২০১৮ ৬:৩১ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

হে! ভাটির আলো: হাজার বছরের পৌরণিক লোক কথার মায়াবী ইন্দ্রজাল ভাটি। হাওর-বাওর আউল-বাউল আর মরমী কবিদের চারণ ভূমি হিসেবে খ্যাত সুরমা, কুশিয়ারা, খোয়াই, ধলাই, ধনু, কালনী, মগরা, মনু, মহাসিং প্রভৃতি নদী। আবার ওসব নদীর কিনারায় রয়েছেন রাছন, রাধারমণ, শীতালংশাহ, দূর্ব্বীণ শাহ, রকিব শাহ, আরকুম শাহ, শেখ ভানু, সৈয়দ শাহানুর, উকিল মুন্সী, জালাল খা, বলনশাহ, জব্বার শাহ, আজি শাহ, তারা শাহ, বিপ্লবী সাধক শাহ আব্দুল করিম সহ অসংখ্য আধ্যাত্মিক গুরু সাধক। যাদের পদাবলি আজ বিশ্ব জুড়ে আলোচিত ও আলোকিত।
হে! ভাটির রত্মগর্ভা: সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, বি-বাড়িয়া, মৌলভীবাজার, নেত্রোকোনা, সিলেট এই সাতটি জেলার সিংহভাগ এলাকা হাওর-বাওর যাকে বর্তমান সাংসদরা ভাটি বলে। প্রযুক্তির আলো আঁধার থেকে বঞ্চিত এই অঞ্চলে আড়াই-তিন কোটি মানুষের বসবাস। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন বিশাল একটি জনপদ। এই জনপদের মানুষ প্রাচীন কাল থেকেই জাতীয় সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। এর মাঝে আবার বিশ্বায়ন হচ্ছে। বিশ্বায়নের যাতাকলে ভাটির শান্ত কৃষক এখন অশান্ত। অপর দিকে প্রকৃতির ভাঙ্গা গড়ার সাথে যুদ্ধ করে করে ভাটি বাংলার সুস্থ্য কৃষক অসুস্থ্য হয়ে পড়ছে। এমতাবস্থায় উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলাতে ভাটির কৃষক হিমশিম খাচ্ছে। এছাড়া স্বাধীনতা উত্তর আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় হাওর অঞ্চলে কোন প্রকার উন্নয়ন, উৎপাদন সঠিক ভাবে হচ্ছে না। শুধু অদুর পিণ্ডি বধুর ঘাড়ে।
হে! জ্ঞান তাপস: আপনি ভাটির মায়ের গর্বগাঁথা সন্তান। হাওর অঞ্চলের আড়াই-তিন কোটি মানুষের অভিভাবক। এছাড়া আপনার সরকার কৃষিবান্ধব। একমাত্র কৃষিই আমাদের জাতীয় আয়ের মূল চালিকা শক্তি। অথচ স্বাধীনতা উত্তর সুসম বণ্টন আর আমলাত্রান্ত্রিক জটিলতায় ভাটি বাংলায় সঠিক উন্নয়ন ও উৎপাদন হচ্চে না। অপর দিকে সরকার আসে সরকার যায় কিন্তু কোন সরকারই কৃষকের জন্য স্থায়ী কোন পরিকল্পনা গ্রহণ করছেন না। আপনি এখন বিবেকের কাঠগড়ায় সমগ্র বাংলার মন্ত্রী- আপনার নিকট ভাটি বাসীর আবেগ ঝড়া বক্তব্যগুলো তুলে ধরে মিডিয়ায় প্রেরণ করলাম।
হে! ভাটির রত্ম: আপনি ভাটি বাংলার রত্ম। আপনি দীর্ঘদিন যাবৎ হাওর অঞ্চলকে নিয়ে জাতীয় পর্যায়ে কাজ করে আসছেন। আপনি জানেন হাওর সমস্যার স্থায়ী সমাধান কোথায়। আমরা হাওরবাসী আশাবাদি আপনার মাধ্যমে সাতটি জেলার হাওর সমস্যার স্থায়ী সমাধান হবে এবং হাওর অঞ্চলের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড বেগবান হবে। ইতিমধ্যে নদী খননের কাজ কৃষকের দ্বারগোড়ায় পৌঁছেছে।
পরিশেষে আপনার চলার পথ সুগম হোক সহজ হোক এই প্রত্যাশা সমগ্র ভাটি বাসীর।
জয় শেখ হাসিনা, জয় ভাটি বাংলা, জয় মোস্তফা জব্বার।
শুভেচ্ছান্তে-
রওশন জলিল কোরেশী
আহ্বায়ক, হাওর গবেষণা কেন্দ্র (ঐজঈ) সিলেট।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Print

শীর্ষ খবর/আ আ