আহাদ হত্যাকান্ডের ঘটনায় ফুঁসছে রাজনগর

Pub: শনিবার, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮ ১১:০২ অপরাহ্ণ   |   Upd: শনিবার, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮ ১১:০২ অপরাহ্ণ
 
 
 

শীর্ষ খবর ডটকম

মো. এনামুল কবীর, বিশেষ প্রতিনিধি, সিলেট :: সিলেটে কুয়েত আওয়ামী লীগ নেতা হত্যাকান্ডের কোন ক্লু উদ্ধার সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে এখনও কোন মামলাদায়েরও হয়নি। তবে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন জানিয়েছেন, তারা তদন্ত শুরু করেছেন। এদিকে আব্দুল আহাদ হত্যাকান্ডের ঘটনায় রীতিমতো ফুঁসছে রাজনগর। প্রতিবাদ কর্মসূচি শুরু হয়েছে।

শনিবার মৌলভীবাজারের রাজনগরে সড়ক অবরোধ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন স্থনীয় রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন এবং এলাকার সচেতন জনসাধারণ।

শুক্রবার রাত পৌনে ১১টার দিকে সিলেট নগরীর সিটি সেন্টারের সামনে একদল যুবক তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। তার পেটসহ শরীরের কয়েকটি অংশ মারাত্মক জখম হয়। প্রচুর রক্তক্ষরণরত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ময়না তদন্ত শেষে শনিবার বিকেলে তার লাশ নিয়ে যাওয়া হয় মৌলভীবাজারের মুন্সীরবাজারস্থ করিমপুর মেদেনিমহল গ্রামে। রাত ৯টার দিকে দ্বিতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক গুরুস্তানে তার লাশ দাফন করা হয়েছে বলে পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে।

কুয়েত প্রবাসী আব্দুল আহাদ (৩৮) মেদেনিমহল গ্রামের নুর উদ্দিনের পুত্র। একসময় ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। কুয়েত আওয়ামী লীগের সর্বশেষ কাউন্সিলে তাকে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচন করা হয়। তিনি অত্যন্ত দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করছিলেন বলে জানিয়েছেন রাজনগর আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা। দেশে থাকতে এক সময় তিনি সাংবাদিকতার সাথেও জড়িত ছিলেন। তিনি সিলেট বিভাগীয় লেখক ফোরাম কুয়েত শাখার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছিলেন। আব্দুল আহাদ ঈদুল আযহার কয়েকদিন আগে ছুটিতে দেশে এসেছিলেন। রাজনীতির টানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বৃহস্পতিবারের জনসভায় যোগদিতে তিনি সিলেট নগরীতে এসেছিলেন। শুক্রবার রাতেই তার গ্রামের বাড়ি ফেরার কথা ছিল। কিন্তু তার আগে ঘাতকের ছুরিকাঘাতে তাকে পাড়ি জমাতে হয় জীবনের ওপারে। তার পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, রাজনৈতিক কারণেই তাকে হত্যা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জনসভার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার আগে বিদেশী একটি নম্বর থেকে তার মোবাইলে কল আসে। তখন তাকে ‘বিদায়’ নিয়েই সিলেট যেতে বলেছিল অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা-সাংবাদিকদের কাছে তার স্ত্রী এমন দাবি করেছেন। এদিকে আহাদ হত্যাকান্ডের ঘটনায় ফুঁসে উঠেছেন রাজনগর এলাকাবাসী। তারা আন্দোলন কর্মসূচি শুরু করেছেন। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত মৌলভীবাজার-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কের মুন্সিবাজার অবরোধ করে রাখেন তারা।

রাজনগর প্রেসক্লাবের সাবেক সদস্য আহাদ হত্যাকান্ডের ঘটনায় ক্লাব সদস্যরা কালো ব্যাজ ধারণ ও শোক সভার আয়োজন করেন। ক্লাবের সভাপতি আউয়াল কালাম বেগের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় বক্তব্য রাখেন সহ সভাপতি আব্দুল আজিজ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান সোহেল প্রমুখ।

এদিকে স্থানীয় লেকজন ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা আব্দুল আহাদ হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচিও পালন করেছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন, মনসুরনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মিলন বখত, রাজনগর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দেওয়ান খয়রুল মজিদ সালেক, ফতেহপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নকুল চন্দ্র দাস ও মুন্সিবাজার ইউপি চেয়ারম্যান ছালেক মিয়াসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী।

এদিকে আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল আহাদ হত্যাকান্ডের ঘটনা তদন্ত শুরু করেছে সিলেট কোতোয়ালি থানা পুলিশ। ওসি মোশাররফ হোসেন দৈনিক শুভ প্রতিদিনকে বলেন, হত্যার কারণ সম্পর্কে আমরা এখন কিছু বলতে পারবনা। তারা এখনও কোন এজাহার দায়ের করেন নি। আমরা বিভিন্ন বিষয় মাথায় রেখে তদন্ত শুরু করেছি।

শীর্ষ খবর/এক

Print

শীর্ষ খবর/আ আ

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1152 বার

আজকে

  • ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
  • ৮ই মুহাররম, ১৪৪০ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

 
 
 
 
 
সেপ্টেম্বর ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
« আগষ্ট    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  
 
 
 
 
WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com